ট্রাভেলঅন ডেস্ক রিপোর্ট
চলমান রাজনৈতিক সংঘাতের কারণে নিজ দেশের নাগরিকদের বাংলাদেশ ভ্রমণে সতর্ক করছে যুক্তরাজ্য, কানাডা, অস্ট্রেলিয়া ও সুইডেন। যুক্তরাজ্যের ভ্রমণ পরামর্শে বলা হয়েছে, রাজনৈতিক উত্তেজনা বাংলাদেশে একটি নিয়মিত বিষয়ে পরিণত হয়েছে।

গত বছরের ৫ জানুয়ারি দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের মাধ্যমে নতুন সরকার ক্ষমতা গ্রহণের এক বছর পূর্তিতে অস্থিতিশীলতার মাত্রা আরো বেড়ে গেছে। নিরাপত্তা পরিস্থিতির অবনতি হয়েছে। এ কারণে বাংলাদেশ ভ্রমণরত অবস্থায় প্রতিনিয়ত গণমাধ্যমে চোখ রাখার পরামর্শ দেয়া হয়েছে। সতর্কবার্তায় জানানো হয়, বাংলাদেশের পুলিশ সব ধরনের সমাবেশ ও প্রতিবাদ কর্মসূচি নিষিদ্ধ করেছে। এছাড়া সড়কগুলোয় অতিরিক্ত নিরাপত্তা রক্ষীদের টহল দিতে দেখা যাচ্ছে। এ কারণে ব্রিটিশ হাইকমিশনের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বিএনপির গুলশান কার্যালয়ের আশপাশের এলাকা এড়িয়ে চলতে বলা হয়েছে। এছাড়া অবরোধের সময় ভ্রমণের ক্ষেত্রে সংঘাতপূর্ণ এলাকা বা সমাবেশ এড়িয়ে চলার পরামর্শ দেয়া হয়েছে। কানাডা ভ্রমণ সতর্কবার্তা দেয়, ২০১৪ সালের ১৭ নভেম্বর, যা এখনো বলবৎ রয়েছে। কানাডার বার্তায় বাংলাদেশ ভ্রমণে উচ্চমাত্রার সাবধানতা অবলম্বনের পরামর্শ দেয়া হয়েছে।

বাংলাদেশ পরিস্থিতির আরো অবনতির আশঙ্কা করে বলা হয়েছে, এক্ষেত্রে বিপজ্জনক কোনো পরিস্থিতি সৃষ্টি হলে কানাডা দূতাবাস সহায়তা করতে সক্ষম নাও হতে পারে। তাই সাবধানতা অবলম্বন করতে হবে। অস্ট্রেলিয়াও তাদের দেশের নাগরিকদের জন্য বাংলাদেশ ভ্রমণে উচ্চমাত্রার সাবধানতা অবলম্বন করতে বলেছে। তাদের ভ্রমণ বার্তাটি গত ১৯ নভেম্বর প্রকাশ করা হয়। এতে ভ্রমণ ইচ্ছুকদের পুনর্বিবেচনারও তাগিদ দেয় দেশটি। বাংলাদেশের অনিশ্চিত রাজনৈতিক ও নিরাপত্তা পরিস্থিতির কারণে এ উচ্চমাত্রার সতর্কবার্তা দেয়া হয়েছে।

ভ্রমণকালে সার্বক্ষণিক গণমাধ্যমেও চোখ রাখার পরামর্শ দিয়েছে দেশটি। বাংলাদেশ ভ্রমণের বিষয়ে সুইডেন দূতাবাসের ওয়েবসাইটে হরতাল ও অবরোধ সামনে রেখে জনসমাগম এড়িয়ে চলতে দেশের নাগরিকদের পরামর্শ দেয়া হয়েছে। এদিকে পর্যটন খাতকে সব ধরনের রাজনৈতিক কর্মসূচির (হরতাল ও অবরোধ) আওতামুক্ত রাখার আহ্বান জানিয়েছে বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ড। বৃহস্পতিবার রাজধানীর ট্যুরিজম বোর্ডের সম্মেলন কক্ষে এক জরুরি সংবাদ সম্মেলনে এ আহ্বান জানান বোর্ডের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা আখতারুজ্জামান খান।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here